নেই চিরচেনা যানজট, ঢাকা এখন অনেক অনেকটাই ফাঁকা

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশ: 2022-05-02 00:49:25 | রাজধানী

যানজটের শহর রাজধানী ঢাকা এখন অনেকটাই ফাঁকা। শুক্র-শনিবারের নিয়মিত আর রোববার মে দিবসের ছুটি মিলিয়ে আগেভাগেই অনেকে ঢাকা ছাড়ায় রাজপথে এখন প্রশান্তির ছোঁয়া।

অবশ্য পরিবহন সঙ্কট আর বেশি ভাড়ার ঝামেলাটা পোহাতে হচ্ছে ফাঁকা রাস্তায় বের হওয়া মানুষদের। আবার খালি রাস্তায় শান্তিতে চললেও যাত্রী সঙ্কটের অভিযোগ চালকদের।

অবশ্য কাজের চাপ কমায় আনন্দেই আছে ট্রাফিক পুলিশ। জানিয়েছে, সামনেই কয়েকটা দিন কোন ঝামেলা আর ব্যস্ততা ছাড়াই কাটবে তাদের।
দুইদিন গেলো শুক্র ও শনিবার। তার সঙ্গে যোগ হয়েছে রোববার পহেলা মে শ্রমিক দিবসের সরকারি ছুটি। এরপরই শুরু হয়ে যাবে ঈদের ছুটি।

কেনাকাটা সেরে স্বজনদের সাথে ঈদ করতে ঢাকার বাইরে ছোটার পালাটা তাই শুরু হয়েছিল আগেভাগেই। ফলাফল, ঈদের চাঁদ ওঠার আগেই অনেকটা খালি রাজধানীর রাস্তাঘাট।

রমজান মাস শুরুর প্রথম দিন থেকে রাজধানীর যে যানজট ছিলো প্রতিদিনের সংবাদ শিরোনাম, সেটি এখন নাই বললেই চলে। অনেকটাই ফাঁকা হয়ে গেছে প্রধান প্রধান সড়কগুলো।
সেসব রাস্তায় গোটা রমজানজুড়ে চলেছে অসহ্য যানজট, সেখানে এখন রাজধানীর সড়কে ছুটে চলছে যানবাহন, কোথাও নেই কোন যানজট। যেন শান্তির ছোঁয়া সড়কজুড়ে। রাজধানীর বড় বড় বিপণীকেন্দ্রগুলো সামনে ব্যক্তিগত গাড়ির জটলা দেখা গেলেও ভোগান্তির কারণ হতে পারেনি। তবে অভিজাত গুলশান-বনানীর কিছু সড়কে ছিলো ধীর গতি।

কমেছে যানবাহন, বেড়েছে ভাড়া। তাই ফাঁকা রাস্তার আনন্দের সাথে যুক্ত হয়েছে ভোগান্তিও। যাত্রীরা বলছেন গণপরিবহন অনেক কম। সিএনজি অটো ভাড়া হাঁকছে কয়েকগুণ। রাইড শেয়ারিং সেবাগুলোও ঈদের সময়ে পাওয়া যাচ্ছে খুব কম। তাছাড়া এসব সেবার ভাড়া অনেক বেড়ে যাওয়ায় বাধ্য হয়ে অন্য কিছু খুঁজে নিতে হচ্ছে অনেককে।

আবার যানবাহন চালকদেরও অভিযোগ, যাত্রী কমেছে, কমেছে আয়ও। সে কারণে তাদেরকে বাধ্য হয়েই কিছু ভাড়া বেশি চাইতে হচ্ছে। খালি রাস্তায় সবচেয়ে স্বস্তিতে ট্রাফিক পুলিশ। যানজট না থাকায় নির্ভার সময় কাটছে তাদের। বলছেন দুই ঈদের সময়েই তাদের একই রকম সময় কাটে। যা সারা বছর পাওয়া যায় না।