ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিনে কমলাপুর রেলস্টেশনে উপচেপড়া ভিড়

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশ: 2021-11-06 01:06:23 | রাজধানী

জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে শুক্রবার ভোর থেকে বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। তবে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক থাকায় কমলাপুর রেলস্টেশনে যাত্রীদের চাপ বেড়েছে। সকাল থেকেই স্টেশনে যাত্রীদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ করা গেছে।
আজ শনিবার (৬ নভেম্বর) ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিনেও সকালে কমলাপুর রেলস্টেশনে এমন চিত্র দেখা গেছে।

স্টেশনে আসা বেশিরভাগ মানুষ বাস বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে পড়েছেন বলে জানিয়েছেন। তারা বলছেন, একে তো দূরপাল্লার বাস বন্ধ, আবার স্টেশনে যত যাত্রী, তাতে ট্রেনের টিকিট পাওয়া এবং উঠতে পারা নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন।কিশোরগঞ্জগামী যাত্রী হামিদুর রহমান ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ঢাকায় জরুরি কাজে এসেছিলাম। এখন বাড়ি ফিরতে হবে। কিন্তু বাস বন্ধ, ট্রেনের টিকিটও নেই। আবার স্টেশনে যত মানুষ, ট্রেনে উঠতে পারব কিনা সেই আশঙ্কাও আছে।স্টেশনে ভিড় করা আরও অনেক যাত্রী এভাবে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। ট্রেনে গন্তব্যে যাওয়ার অনিশ্চয়তা তো রয়েছেই। এ ছাড়া স্টেশনে আসতেও তাদের অনেক ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে বলে জানান। সেই সঙ্গে কয়েকগুণ বাড়তি ভাড়া দিয়ে তাদের স্টেশনে আসতে হয়েছে বলে জানান।

এদিকে, গণপরিবহন বন্ধে শুধু দূরের যাত্রীদের নয়, ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে রাজধানীর অফিসগামী অসংখ্য মানুষকে। বাস না থাকায় বিকল্প হিসেবে সিএনজিচালিত অটোরিকশা, রিকশাযোগে অফিসে যেতে হচ্ছে তাদের। আবার এসব বাহন সংকটে অনেককে হেঁটেও গন্তব্যে যেতেও দেখা গেছে। এভাবে অফিস যেতে কয়েকগুণ বেশি খরচের পাশাপাশি ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে বলে জানিয়েছেন অনেকে।

কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান নিজস্ব ব্যবস্থায় কর্মীদের পরিবহনের ব্যবস্থা করলেও বেশিরভাগ অফিসগামী মানুষকে ভোগান্তি নিয়ে অফিসে ছুটতে হয়েছে।আবার অনেক শিক্ষার্থীকেও পড়তে হয়েছে ভোগান্তিতে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত রাজধানীর সাত সরকারি কলেজের ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির বিজ্ঞান ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা আজ। সকাল ১০টায় শুরু হয়ে পরীক্ষা চলবে ১১টা পর্যন্ত।

বুধবার (৩ নভেম্বর) মধ্যরাত থেকে ডিজেলের মূল্য লিটারপ্রতি ১৫ টাকা বৃদ্ধি করেছে সরকার। এ নিয়ে বৃহস্পতিবার (৪ নভেম্বর) পরিবহন খাতের বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা বৈঠক করেন। বৈঠক থেকে ভাড়া বাড়ানোর সুনির্দিষ্ট ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত পরিবহন বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।তবে এ বিষয়ে পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের সংগঠনগুলোর কেন্দ্রীয় পর্যায় থেকে কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া হয়নি। অর্থাৎ ঘোষণা ছাড়াই শুক্রবার সকাল থেকে চলছে অনির্দিষ্টকালের পরিবহন ধর্মঘট।

লোকালয়/আর/এন/