বাবরের সেঞ্চুরিতে সিরিজে এগিয়ে পাকিস্তান

মাঠে নামার আগে সুখবর পেয়েছিলেন বাবর আজম। ৪৫ মাস ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষে থাকা বিরাট কোহলিকে টপকে এক নম্বর ব্যাটসম্যান হয়েছেন পাকিস্তান অধিনায়ক। শুধু ওয়ানডে নয় টি-টোয়েন্টিতেও যে তিনি অসাধারণ তার প্রমাণ আবারও দিলেন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বড় রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে হেসে খেলে জেতালেন দলকে। তুলে নিয়েছেন ছোট ফরম্যাটের প্রথম আন্তর্জাতিক শতকও।
আজ বুধবার সেঞ্চুরিয়ন পার্কে সিরিজের তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে টস হেরে ব্যাট করে প্রোটিয়ারা। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২০৫ রান সংগ্রহ করেছে প্রোটিয়ারা।

পাহার সমান রান তারা করতে নামেন বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ান। স্বাগতিক বোলারদের পাত্তা না দিয়ে দ্রুত রান তুলতে থাকেন দুই ওপেনার।

১৮তম ওভারের চতুর্থ বলে লিজার্ড উইলিয়ামরে বলে উইকেটরক্ষক হেনরিচ ক্লাসেনের হাতে ধরা পড়েন সফরকারী দলপতি। তার আগে ৫৯ বলে ১২২ রান আসে তার ব্যাট থেকে। ১১টি চার ও চারটি ছক্কায় ইনিংসটি সাজান ২৬ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান।
বাবর যখন ফিরে গেলেন, তখন জেতার জন্য লাগত মাত্র সাত রান। হাতে ছিল ১৪ বল। তবে ওভারের শেষ দুই বলে দুটি চার মেরে ম্যাচ শেষ করে দেন নতুন ব্যাটসম্যাস ফখর জামান। ননস্ট্রাইকে থাকা রিদওয়ান ৪৭ বলে ৭৩ রান করেন।
এতে ১২ বল বাকি থাকতে ৯ উইকেটে বিশাল জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে পাকিস্তান।
বাবর-রিজওয়ানের জুটিটি ছিল ১৯৭ রানের। যা টি-টোয়েন্টির চতুর্থ সর্বোচ্চ। তবে রান তাড়া করতে নেমে এটাই সবচেয়ে বড় জুটি।
এর আগে এইডেন মার্করামের ৩১ বলে ৬৩ রান ও ৪০ বলে জানেমান মালানের ৫৫ রানের সুবাদে বড় সংগ্রহ করতে সক্ষম হয় প্রোটিয়ারা।
পাকিস্তানের জার্সিতে দুটি উইকেট তুলেন মোহাম্মদ নেওয়াজ। একটি করে উইকেট আদায় করেন শাহিন শাহ আফ্রিদি, হাসান আলি ও ফাহিম আশরাফ।
এই জয়ের পর চার ম্যাচের সিরিজে ২-১ এগিয়ে গেল পাকিস্তান। প্রথম ম্যাচে চার উইকেটে জিতেছিল বাবরের দল। সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে ৬ উইকেটে জয় তুলে নেয় দক্ষিণ আফ্রিকা। আগামী ১৬ এপ্রিল সিরিজের শেষ ম্যাচে মাঠে নামবে দলদুটি।