পাক প্রধানমন্ত্রীকে নোবেল পুরস্কার দেয়ার দাবি!

পাকিস্তানের সংসদে শান্তির বার্তা দিয়ে ভারতীয় পাইলট উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে মুক্তি দেয়ার ঘোষণা দিয়ে এই সময়ে বিশ্ববাসীর কাছে ‘হিরো’ হয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

পাকিস্তানের তরুণরা এখন তাকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক হইচই শুরু করে দিয়েছে। যুদ্ধের দামামার মধ্যে শান্তির পক্ষে ইমরান খানের প্রচেষ্টা ঘরে-বাইরে প্রশংসিত হচ্ছে।
আটক ভারতীয় পাইলট অভিনন্দনকে ছেড়ে দেয়ার সিদ্ধান্তে ইমরানকে নোবেল পুরস্কার দেয়ার দাবি জানাচ্ছেন সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারীরা।
ইতিমধ্যে, টুইটারে ইমরানকে নোবেল দেয়ার দাবিতে হ্যাশট্যাগ ঝড় তুলেছেন তারা। পাকিস্তানজুড়ে টুইটার ট্রেন্ডে পরিণত হয়েছে ‘নোবেল প্রাইজ ফর ইমরান খান’ হ্যাশট্যাগ।
পাকিস্তানের জন্য ক্রিকেট বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক ইমরান খানের প্রশংসা করেন জাতিসংঘের মহাসচিব, তুরস্ক, চীনসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নেতারা তার রাজনৈতিক প্রজ্ঞার ব্যাপক প্রশংসা করেন।
ইমরান খানের প্রশংসা করেছে ভারতীয়রাও। ভারতীয় ঔপন্যাসিক কৃষ্ণ প্রতাপ সিং টুইটারে লিখেছেন, ‘যুদ্ধের মাঠে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে হারিয়ে দিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী।’
ভারতের সাবেক ক্রিকেট তারকা ও রাজনীতিবিদ নভোজিৎ সিং সিধু টুইটারে ইমরানের পদক্ষেপকে মহানুভবতা বলে অভিহিত করেন। তিনি লেখেন, ‘ইমরানের বন্ধুত্বের মনোভাব ভারতের কোটি কোটি মানুষের মনে আনন্দের জোয়ার এনে দিয়েছে।’
ভারতের প্রতিরক্ষা বিশ্লেষক ও সাবেক সেনা কর্মকর্তা অজয় শুক্লা টুইটারে লিখেছেন, যুদ্ধক্ষেত্রে যা-ই ঘটুক না কেন, বোধের যুদ্ধে পাকিস্তান বড় জয় পেয়েছে। জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি টুইটারে লিখেছেন, ইমরান সত্যিকারের রাষ্ট্রনায়কোচিত মনোভাব দেখিয়েছেন।
এদিকে ভারতের সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন নাজুক অবস্থায় রয়েছেন নরেন্দ্র মোদি। এই সুযোগে পশ্চিমবঙ্গের মমতা ব্যানার্জিসহ ভারতের বিরোধী নেতা ও রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মোদির বিরুদ্ধে তুমুল সমালোচনায় লিপ্ত হয়েছেন। সব মিলিয়ে মোদির আম-ছালা দুই-ই গেল!