দৃষ্টিহীনদের দৃষ্টি ফেরাতে ১১ জনকে ‘বিশেষ ক্যামেরা’ উপহার মেসির

কোনও দৃষ্টিহীন মানুষের পক্ষে সামনে কে দাঁড়িয়ে,‌ টেবিলে গ্লাস না কাপ রাখা,‌ কে কিংবা কার সঙ্গে সে কথা বলছে, এই প্রশ্নগুলোর কোনওটারই উত্তর দেওয়া সম্ভব নয়। কিন্তু বর্তমানে প্রযুক্তি সেই অসম্ভবকেও সম্ভব করে ফেলেছে। উন্নত প্রযুক্তি এবং আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স বা এআই-এর সাহায্যে এমন এক ক্যামেরা তৈরি করেছে অরক্যাম, যা কিনা দৃষ্টিহীন মানু্ষদের অনেকক্ষেত্রেই সাহায্য করবে। সামনে দাঁড়িয়ে থাকা মানুষটি কে?‌ সামনের কী রাখা রয়েছে?‌ ওই সংস্থার তৈরি করা ক্যামেরা সেই সমস্ত কিছু জানিয়ে দেবে। আর এই সংস্থার সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন খোদ লিওনেল মেসি।
সম্প্রতি মেসি দৃষ্টিহীনদের দৃষ্টি ফেরাতে একটি ইজরায়েলি সংস্থার সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন। এরপর নিজের ‘‌ড্রিম ১১’ বেছে নেন মেসি। ইংল্যান্ড, ব্রাজিল, ফ্রান্স, রাশিয়া একাধিক দেশ থেকে মোট ১১ জনকে বেছে নেওয়া হয়। শিশু থেকে মধ্যবয়সি, প্রত্যেক বয়সের মানুষই সেই দলে ছিলেন। তাঁদের হাতে ‌অরক্যাম-এর বিশেষ চশমা তুলে দেন মেসি নিজেই। এমনকী ছ’‌বছরের এক খুদে আর্সেনাল ভক্তকেও ওই ক্যামেরা উপহার হিসেবে দিলেন মেসি। মূলত চশমার পাশে লাগানো থাকবে এই ডিভাইসটি। ব্যবহারকারী কিছু জানতে চাইলে, লেন্সের মাধ্যমে সেই বস্তুটি স্ক্যান করে সেটি সম্পর্কে জানাবে এই বিশেষ ক্যামেরা।

সম্প্রতি নিজেদের টুইটার হ্যান্ডেলে একটি ভিডিও পোস্ট করে ওই সংস্থা। তাতে দেখা যায়, মেসি নিজে হাতে প্রত্যেককে ওই বিশেষ চশমা পরিয়ে দিচ্ছেন। চশমার সাহায্যে সামনে মেসি দাঁড়িয়ে জানতে পেরে কেউ জড়িয়ে ধরেন, কেউ আবার মেসির পাশে বসে চশমাটির ব্যবহার দেখাতে থাকেন। নেটিজেনদের অনেকেই মেসির এই উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন।